Campus Pata 24
ঢাকাWednesday , 6 March 2024
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. ক্যাম্পাস
  5. খেলাধুলা
  6. চাকরির খবর
  7. জাতীয়
  8. তথ্যপ্রযুক্তি
  9. বিনোদন
  10. ভ্রমণ
  11. মতামত
  12. রাজনীতি
  13. লাইফস্টাইল
  14. শিক্ষা জগৎ
  15. সারাদেশ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

রংপুরে ১৫ নবদম্পতি বিয়ের সাথে পেলো জীবিকার অর্থ ও উপকরণ

Link Copied!

রংপুর নগরীর শেখ রাসেল ইনডোর স্টেডিয়ামে সাজ-সাজ রব। স্টেডিয়ামের ভেতরে ঢুকতেই দেখা মেলে এক অন্যরকম মিলন মেলার। রাজকীয়ভাবে সাজানো মঞ্চে সারি করে বিয়ের পাঞ্জাবী, পায়জামা, জুতা, পাগড়ি পড়ে বসে আছে ১৫ জন বর। অপর আরেকটি ঘরের ভেতরে বিয়ের সাজে ১৫ জন কনে। সকলেরই হাস্যোজ্জ্বল মুখ। এভাবেই বিয়ে হয় ১৫ জোড়া যৌতুকবিহীন।
মঙ্গলবার (৫ মার্চ) সন্ধ্যায় রংপুরে প্রথমবারের মত এক সাথে ১৫ জোড়া যৌতুকবিহীন বিয়ের আয়োজনে করেছে আল-খায়ের ফাউন্ডেশন। সেই সাথে নব-দম্পতিকে স্বাবলম্বী করতে নগদ অর্থ, ভ্যান, সেলাই মেশিনসহ সংসারের নানা উপকরণও দিয়েছে এই মানবিক সংস্থাটি।
জানা যায়, নানা মানবিক কাজের পাশাপাশি কয়েক বছর ধরে আল-খায়ের ফাউন্ডেশন যৌতুকমুক্ত বিয়ে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় রংপুর জেলার ১৫ জোড়া যৌতুকমুক্ত বিয়ের আয়োজন করা হয়। এতে অংশ নেওয়া বর ও কনে উভয়ে অসচ্ছল পরিবার থেকে আসা। এসব অসচ্ছল পরিবারের কন্যা দায়গ্রস্ত পিতার দুশ্চিন্তা লাঘবে বিনা খরচে বিয়ের আয়োজনসহ নব-দম্পতিকে স্বাবলম্বী করতে জীবিকার ব্যবস্থা করে দিয়েছে আল-খায়ের ফাউন্ডেশন।
নগরীর জুম্মপাড়ার এলাকার কনে নুসরাত বেগম বলেন, এত বড় আয়োজন করে আমার বিয়ে এরকম কষনও ভাবি নাই। এ আয়োজন অনেক ভালো লেগেছে আমার। সংসারের জিনিসপত্র পেয়েছি আরো ভাল লাগতেছে।
পাগলাপীর কিশামত হরকলি গ্রামের বাসিন্দা বর মারজান মিয়া বলেন, যৌতুক ছাড়া বিয়া করবার পারছি। এ্যালা বুক ফুলি চলবার পাইম মুই। কায়ও কিছু কবার পাবার নয় মোর পরিবারক। এমন করি বিয়া হইলে যৌতুক সমাজ থ্যাকি উঠি যাইবে, তাছাড়া যৌতুকের জন্তে আর মেয়ে নির্যাতন হবার ন্যায়।
হরকলি পীরপাড়া গ্রামের বাসিন্দা কনে নার্গিস আক্তারের অভিভাবক নানি খাদিজা বেগম বলেন, মোর জামাই মারা গিয়েছে অনেক বছর হইল। বেটি একটা তাংকু (তামাক) কোম্পানি চাকরি করি সংসার চালায়। বেটির দুই বেটি ও এক ব্যাটা। বাপ মরা একটা বেটির আইজ বিয়া হইল। মেলা খুশি লাগতোছে। বিয়া হওয়ার সাতে সংসারের মেলা জিনিসও পাইল। ওমরা সুখে থাকবে এটাই কামনা করো। 
রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. মনিরুজ্জামান বলেন, যৌতুক সমাজের ব্যাধি। আল-খায়ের ফাউন্ডেশন যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছে আমি তার সাধুবাদ জানাই। যেহেতু যৌতুক বেআইনি কাজ, এটি বন্ধ করা পুলিশের কাজ। আমি মনেকরি এ আয়োজনের মধ্য দিয়ে একটি সুস্থ ধারার সূচনা হলো।
রংপুরের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার আবু জাফর বলেন, আজকের যৌতুক বিহীন বিয়ের বিষয়টি ব্যাপকভাবে প্রচার হলে সমাজ থেকে এই যৌতুক ব্যাধি দূর হবে। যৌতুক প্রথা বন্ধে এ ধরনের উদ্যোগ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। এমন আয়োজনে প্রশাসন সব সময় পাশে থাকবে।  
আল-খায়ের ফাউন্ডেশনের কান্ট্রি ডিরেক্টর তারেক মাহমুদ সজীব বলেন, ‘২০১৬ সাল থেকে আল-খায়ের ফাউন্ডেশন প্রাকৃতিক দুর্যোগসহ জনকল্যাণমূলক কাজ করে যাচ্ছে। সেই ধারাবাহিকতায় অসচ্ছল পরিবারের ছেলে-মেয়েদের ঘটা করে যৌতুক বিহীন বিয়ের আয়োজন করেছি। তাদের প্রত্যেককে গাড়িতে করে এখানে নিয়ে এসেছি এবং গাড়িতে করেই বাড়িতে পৌঁছে দেব। সাথে প্রত্যেক দম্পতির জন্য এক ট্রাক ভরা উপহার পৌঁছে দেওয়া হবে। তারা যেন কোনোভাবেই না ভাবে তারা সুবিধা বঞ্চিত। যদি বিত্তবানরা এভাবে একটি করে পরিবারের দায়িত্ব নেয়, তাহলে শীঘ্রই যৌতুক মুক্ত বাংলাদেশ গঠন করা সম্ভব হবে।



সালাউদ্দিন/সাএ

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করা হয়। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।